আপনার কারনেই বন্ধের মুখে Whatsapp । sHARE করুন আপনার বন্ধু ও পরিচিতদের সাথে ।

Whatsapp ব্যাবহার করি সকলেই, কিন্তু কিছু পোষ্ট করার সময় ভাবিনা ভাল বা খারাপ দিকের কথা, যে কারনে হারাতে হতে পারে Whatsapp-কে । সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ও ভুয়ো খবর ছড়ানো এবং তার জেরে অশান্তি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই উদ্বিগ্ন সরকার । বিষয়টি রুখতে নয়া আইন বলবত্‍ করার কথাও ভাবা হচ্ছে । Whatsapp অন্যতম বড় বাজার ভারত । এই মুহূর্তে বিশ্ব জুড়ে অন্তত ১৫০ কোটি মানুষ Whatsapp ব্যবহার করেন । তার মধ্যে ২০ কোটি ব্যবহারকারীই ভারতের ।
সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য বেশ কিছু নতুন আইন নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের । আর সে সব বলবত্‍ হলে Whatsapp এর এই দেশে টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়বে বলেই বুধবার জানালেন Whatsapp এর এক উচ্চ পর্যায়ের আধিকারিক । লোকসভা ভোটের আগে প্রাদেশিক ভাষায় ভুয়ো প্রচার রুখতে গোটা সোশ্যাল মিডিয়া জুড়েই কড়া হয়েছে সরকার । ফেসবুকেও রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রকাশ করার ক্ষেত্রে প্রথমেই বিধিসম্মত সতর্কীকরণ দিয়ে বিষয় ও বিজ্ঞাপনদাতা সংক্রান্ত তথ্য জানানো হবে বলে জানিয়েছেন ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ।
Whatsapp সংস্থার কর্তা কার্ল উগ বুধবার নয়াদিল্লিতে জানান, প্রস্তাবিত ওই বিধিনিষেধে সব চেয়ে বেশি জোর দেওয়া হয়েছে, বার্তার উত্‍স জানার উপরে । এ দিকে, হোয়াটসঅ্যাপ ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন’-কে বিশেষ গুরুত্ব দেয় । যার অর্থ প্রেরক ও গ্রাহক ছাড়া কোনও তৃতীয় ব্যক্তি সেই বার্তাটি দেখতে পারেন না । গোটা পৃথিবী ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষাকে আরও জোরাল করতে চাইছে । ফেসবুকের নিয়ন্ত্রণে থাকা Whatsapp ও সেই দিশা মেনেই চলছে। Whatsapp-কে যদি নতুন আইন মেনে ভারতে ব্যবসা করতে হয়, তবে সম্পূর্ণ ভোলবদল করতে হবে । আর তা কার্যত কতটা সম্ভব তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে । ফলে নয়া আইন আসলে ভারতীয় বাজার থেকে নিজেদের গুটিয়ে নিতে হতে পারে বলেই আশঙ্কা Whatsapp কর্তাদের ।

আমাদের পেজ ফ্লো করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানায় ।

111total visits.