পরীক্ষা হলে ডুকতে হবে খালি পায়ে, জুতো-মোজা পরে পরীক্ষা হলে ঢোকা যাবে না নির্দেশ শিক্ষা দপ্তরের । sHARE করুন আপনার বন্ধু ও পরিচিতদের সাথে ।

হেডলাইন পরে মনে হয়েছে ব্যাপারটা কেমন যেন বোকা বোকা । এটা সকলেই জানে যে স্কুল বা চাকরির পরীক্ষায় টুকলি করতে ওস্তাদ বিহার । ২০১৬ সালে এই টুকলি করেই বিহারের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় আর্টসে শীর্ষ তালিকায় স্থান হয় রুবি রাইয়ের । এ বছর যাতে সেরকম কোনও ঘটনা না ঘটে, তারজন্য আগে থেকেই তত্‍পর বিহারের স্কুল শিক্ষা দপ্তর । পরীক্ষার সময় ব্যাপক পুলিসি নিরাপত্তা দেওয়া হয় বিহারে । যাতে পরীক্ষার্থীরা সত্‍ উপায়ে পরীক্ষা দিতে পারে । কিন্তু তাও নানাধরনের পদ্ধতির মাধ্যমে পরীক্ষার্থীরা ঠিক টুকলি করছে ।
বিহারের উচ্চমাধ্যমিক ও ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষা শুরু হচ্ছে তথা ৬ ফেব্রুয়ারি ও ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে । ‌পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা হলের মধ্যে জুতো-মোজা পরে ঢুকতে পারবে না । এমনকী দু’‌বার তল্লাশির পরই তারা পরীক্ষা হলে প্রবেশের অনুমতি পাবে । বিহার বোর্ডের চেয়ারম্যান আনন্দ কিশোর জানান, যদি কোনও পরীক্ষার্থীকে অসত্‍ উপায় অবলম্বন করতে দেখা যায়, তবে তাকে সাসপেন্ড করে দেওয়া হবে । অতীতে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গে তিনি জানান, পরীক্ষা হলের মধ্যে শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাড়া কারোর কাছে মোবাইল ফোন থাকবে না । বিহার বোর্ড ১০টি সেটের প্রশ্নপত্র তৈরি করেছে, যা একে-অপরের থেকে আলাদা ।

82total visits.